আলাওল

আলাওল

 

আলাওল আনুমানিক ১৬০৭ সালের দিকে চট্টগ্রামের হাটহাজারির জোবরা গ্রামে (ড.মুহাম্মদ এনামুল হকের মতে) মতান্তরে ফরিদপুর জেলার ফতেহাবাদ পরগনায় (ড.মুহম্মদ শহীদুল্লার মতে) জন্মগ্রহণ করেন।তিনি আরাকান কবিদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ তথা মধ্যযুগের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য মুসলমান কবি ছিলেন।তাঁর পিতা ফতেহাবাদের মজলিস কুতুবের মন্ত্রী ছিলেন। আলাওল বাংলা, সংস্কৃত, পারসি ও আরবি জানতেন। তিনি ১৬৮০ সালে মৃত্যুবরণ করেন।

আলাওল কর্মজীবনের শুরুতে মগরাজের সেনাবাহিনীতে চাকুরি নেন। তিনি আরাকান রাজ উমাদারের রাজদেহরক্ষী অশ্বারোহী হিসেবে নিযুক্ত হন। আলাওলের সময় আরাকানের রাজা ছিলেন সুর্ধমা।

 

সাহিত্যজীবন

আলাওলকে কাব্য রচনায় উৎসাহ দেন অমাত্য মাগন ঠাকুর।

 

গ্রন্থ

আলাওলের গুরুত্বপূর্ণ কাব্যগ্রন্থ – পদ্মাবতী, সয়ফুলমূলক বদিউজ্জামান, হপ্ত পয়কর, সিকান্দারনামা, তোহফা বা তত্ত্বোপদেশ, রাগতালনামা এবং দৌলত কাজীর অসমাপ্ত গ্রন্থ সতীময়না-লোর-চন্দ্রানী।

 

পদ্মাবতী: আলাওলের প্রথম ও শ্রেষ্ঠ গ্রন্থ ‘পদ্মাবতী’। হিন্দি কবি মুহম্মদ জায়সির হিন্দি ভাষার কাব্য ‘পদমাবৎ’ থেকে বাংলায় অনুবাদ ‘পদ্মাবতী’।পদ্মাবতী ইতিহাসাশ্রিত রোমান্টিক প্রেমকাব্য। পদ্মাবতী গ্রন্থে পদ্মাবতীর রূপ বর্ণনা খন্ডে মহাকবি আলাওল বলেন-

“রক্ত উৎপল লাজে জলান্তরে বৈসে।

তাম্বুল (পান) রাতুল হৈল অধর পরশে।।” অর্থ – ঠোঁটের পরশে পান লাল হলো।