কাতার

কাতার (Qatar)

রাষ্ট্রীয় নামঃ দওলাত আল কাতার ।

State Name: Dowlat Al Qatar

 রাজনৈতিক পদ্ধতিঃ গনতন্ত্র।

Political system: Democracy

সরকার পদ্ধতিঃ Emirate।

Government system: Emirate

আয়তনঃ ১১,৪৩৭ কিঃ মিঃ (আয়তন – ১১৬ তম) 

Size: 11,437 km (volume – 116th)

স্বাধীনতাঃ ১৯৭১ (ব্রিটেন হতে)

Freedom: 1971 (from Britain)

ভাষাঃ আরবি।

Language: Arabic

রাজধানীঃ দোহা।

Capital: Doha

মুদ্রাঃ রিয়াল।

Currency: Real

অবস্থান

কাতার সরকারের প্রধান আমির।কাতারের মাথাপিছু আয় $১৪৫,৮৯৪ মার্কিন ডলার যা বর্তমান বিশ্বে সবোর্চ্চ মাথাপিছু আয়। খনিজ তেল, গ্যাস সমৃদ্ধ আরব উপসাগরের ছোট্ট এই দেশের দক্ষিনে সৌদি আরব আর পশ্চিমে বাহারাইন দ্বীপ। অন্যান্য আরব দেশের মত এটিও শুষ্ক মরুর দেশ।

Location

Qatar’s Chief Amir. Qatar’s per capita income is $ 145,894, which is the highest per capita income in the world. Minor oil,  Saudi Arabia on the southern side of the small country of gas rich Arab Gulf and Bahrain Island to the west. Like other Arab countries, it is also a dry desert country.

 

কাতার – সৌদি দ্বন্ধ

২০১৭ সালের ৫ জুন কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা দেয় সৌদি আরব, বাহরাইন, আরব আমিরাত ও মিসর। তারা কাতারের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদ ও ইরানকে সহায়তার অভিযোগ তোলে। এরপর থেকে কাতারের একমাত্র স্থলসীমান্ত বন্ধ করে দেয় সৌদি আরব। দেশটির রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থাকে প্রতিবেশীদের আকাশসীমা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। এমনকি এই চার দেশ থেকে কাতারি নাগরিকদেরও বহিষ্কার করা হয়।

এসব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের জন্য কাতারকে ১৩ দফা শর্ত দেয় উপসাগরীয় চার দেশ। এসব শর্তের মধ্যে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা’র সম্প্রচার বন্ধ করা, দেশটি থেকে তুরস্কের সেনাদের প্রত্যাহার করা এবং ইরানের সঙ্গে সহযোগিতা বন্ধের কথা বলা হয়। তবে কাতার এসব শর্তে রাজি হয়নি। বরং তুরস্ক ও ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদার করে দোহ। এই স্নায়ুযুদ্ধ অব্যাহত থাকলেও এখনও পর্যন্ত সংযুক্ত আরব আমিরাতে গ্যাস সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে কাতার।

উপসাগরীয় দেশগুলোর সম্পর্কে ইরান ইস্যুটির সঙ্গে এখন যুক্ত হয়েছে তুরস্ক ইস্যু। সৌদি আরবের সঙ্গে সম্পর্কের টানাপেড়েন চললেও কাতারের সঙ্গে বন্ধুত্ব আরও জোরদার করেছে তুরস্ক। একইসঙ্গে তুরস্কের ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থানের সময় সামরিক শক্তি দিয়ে পাশে দাঁড়ানোয় দেশটিকে ধন্যবাদ জানান এরদোগান। সংকটকালে সহযোগিতা দেওয়ায় ইরানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আল থানি।

Qatar – Saudi conflict

On June 5, 2017, Saudi Arabia, Bahrain, the United Arab Emirates and Egypt have announced to seal ties with Qatar. They make accusations against Qatar for terrorism and Iran. Since then Saudi Arabia has closed Qatar’s only land boundary. The country’s state-owned air force has been prohibited from using the airspace of neighbors. Even the Katari citizens were expelled from these four countries.

To withdraw these restrictions, Qatar has given 13-point terms to four Gulf countries. Under these conditions, the press has been asked to stop the broadcast of Al Jazeera, withdraw the Turkish troops from the country and stop cooperation with Iran. But Qatar did not agree to these conditions. Rather than strengthening diplomatic and commercial relations with Turkey and Iran, Doha Although this Cold War continues, Qatar has continued to supply gas to the United Arab Emirates so far.

Turkey issue is now associated with Iran’s issue of Gulf countries. Turkey has strengthened relations with Qatar despite the tension in relations with Saudi Arabia. At the same time, Recep Tayyip Erdogan thanked the country for standing with military power during Turkey’s failed military coup. Qatar’s Amir Sheikh Tamim bin Hamad Al Thani thanked Iran for providing assistance during the crisis.