জাতিপুঞ্জ

জাতিপুঞ্জ

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় জার্মান সরকার যুক্তরাষ্টের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি উড্রো উইলসন (Woodrow Wilson) কে ১৯১৮ সালের অক্টোবর মাসে একটি সাধারণ যুদ্ধ বিরতীর আহ্বান জানায়। এর প্রেক্ষাপটে উড্রো উইলসন তার বিখ্যাত চৌদ্দ দফা পেশ করেন। তিনি তার চৌদ্দ দফা শর্তের ১৪ নং দফায় বিশ্বশান্তি রক্ষায় একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন গড়ে তোলার জন্য প্রস্তাব করেন। এর পরিপেক্ষিতে ১৯১৯ সালের ২৮ জুন স্বাক্ষরিত ‘ভার্সাই চুক্তি’ মাধ্যমে ১৯২০ সালের ১০ জানুয়ারি জাতিপুঞ্জের জন্ম হয়। সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় এর সদর দপ্তর স্থাপিত হয়। জাতিপুঞ্জের ৩ টি অঙ্গসংস্থা ছিল- পরিষদ, কাউন্সিল এবং সচিবালয়।গঠনের সময় জাতিপুঞ্জের সদস্য ছিল ৪২ টি। যুক্তরাষ্ট্র জাতিপুঞ্জের সদস্য ছিলোনা। প্রথম বিশ্ব যুদ্ধের পর বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠাই ছিল জাতিপুঞ্জ প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য।কিন্তু দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ এড়াতে ব্যর্থ হওয়ায় ১৯৩৯ সালে এটি কার্যকারিতা হারায় এবং ১৯৪৬ সালের ২৩ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে বিলুপ্ত হয়।