পৃথিবীর কাল্পনিক রেখা

পৃথিবীর কাল্পনিক রেখা

অক্ষরেখা ও নিরক্ষরেখা

পৃথিবীর গোলাকৃতি কেন্দ্র দিয়ে উত্তর দক্ষিনে কল্পিত রেখাকে অক্ষ (Axis) বা মেরুরেখা বলে। উত্তর মেরুকে উত্তর মেরু বা সুমেরু এবং দক্ষিন মেরুকে দক্ষিন মেরু বা কুমেরু বলে।

দুই মেরু থেকে সমান দূরত্বে পৃথিবীকে পূর্ব পশ্চিমে বেস্টন করে একটি রেখা কল্পনা করা হয়েছে একে নিরক্ষরেখা বা বিষুবরেখা বলে।নিরক্ষরেখাকে নিরক্ষবৃত্ত/০ অক্ষরেখা/ মহাবৃত্ত রেখাও বলা হয়।

২৩.৫উত্তর অক্ষাংশকে কর্কটক্রান্তিরেখা বলে

২৩.৫দক্ষিন অক্ষাংশকে মকরক্রান্তিরেখা বলে

৬৬.৫উত্তর অক্ষাংশকে সুমেরুবৃত্ত বলে

৬৬.৫ দক্ষিন অক্ষাংশকে কুমেরুবৃত্ত বলে

মূল মধ্যরেখা (Prime Meridian)

যুক্তরাজ্যের লন্ডন শহরের উপকন্ঠে গ্রীনিচ (Greenwich) মান মন্দিরের উপর দিয়ে উত্তর মেরু ও দক্ষিন মেরু পর্যন্ত বিস্তৃত যে মধ্যরেখা অতিক্রম করেছে তাকে মূল মধ্যরেখা বলে। পৃথিবীর পরিধি দ্বারা উৎপন্ন কোণ ৩৬০°। গ্রীনিচের দ্রাঘিমা ০°। ১° দাঘ্রিমার জন্য ৪ মিনিট। ৩৬০° কৌনিক দূরত্ব আবর্তন করতে পৃথিবীর ২৪ ঘন্টা বা ১৪৪০ মিনিট সময় মিনিট সময় লাগে।

  • ৯০° দাঘ্রিমা রেখা বাংলাদেশের প্রায় মধ্যভাগে অবস্থিত।
  • দাঘ্রিমা রেখা পৃথিবীর পরিধির অর্ধেক।

 

আর্ন্তজাতিক রেখা

আর্ন্তজাতিক রেখা অতিক্রমের সূত্র হলো ‘পশ্চিমগামী যানের জন্য একদিন যোগ হবে এবং পূর্বগামী যানের ক্ষেত্রে একদিন বিয়োগ হবে।

প্রতিপাদ স্থান

পৃথিবী গোল তাই এর কোনো একটি স্থানের দিকে অন্য একটি স্থান আছে।ঢাকার প্রতিপাদ স্থান চিলির সান্তিয়াগো।

সময় সূযের পরিক্রনমকালে পৃথিবীর ভৌগলিক রেখার উপর লম্বভাগে কিরণ।  

 

দিবারাত্রির তথ্য

                      ঋতু নাম   
উত্তর দক্ষিন
২৩ শে জুন কর্কটক্রান্তি রেখা দিন বড় ও রাত ছোট গ্রীষ্মকাল শীত
২৩ শে সেপ্টেম্বর নিরক্ষ রেখা দিন রাত সমান শরৎ বসন্ত
২২ শে ডিসেম্বর মকরক্রান্তি রেখা দিন বড় রাত ছোট শীত গ্রীষ্মকাল
২১ শে মার্চ নিরক্ষ রেখা দিন রাত সমান বসন্ত শরৎ