প্রমথ চৌধুরী

প্রমথ চৌধুরী

প্রমথ চৌধুরী ১৮৬৮ সালের ৭ আগস্ট বাংলাদেশের যশোরে জন্মগ্রহণ করেন।তাঁর পৈতৃক বাড়ি পাবনা জেলার চাটমোহর উপজেলার হরিপুর গ্রামে।তিনি রবীন্দ্রনাথের অগ্রজ সতেন্দ্রনাথ ঠাকুরের কন্যা ইন্দিরা দেবীকে বিয়ে করেন।তাঁর ছদ্মনাম ‘বীরবল’।বাংলা গদ্য রীতিতে চলিত রীতির প্রবর্তক প্রমথ চৌধুরী।তিনি মূলত প্রাবন্ধিক।তিনি ‘জীবনে জ্যাঠামি ও সাহিত্যে ন্যাকামি’ সহ্য করতেন না।১৯৪৬ সালের ২ সেপ্টেম্বর (বাংলা ১৬ই ভাদ্র, ১৩৫৩) তিনি কলকাতায় মৃত্যুবরণ করেন।

প্রবন্ধগ্রন্থ

বীরবলের হালখাতা: বাংলা সাহিত্যে চলিত রীতিতে লেখা প্রথম গ্রন্থ বীরবলের হালখাতা।এটি ‘ভারতী’ পত্রিকায় ১৯০২ সালে প্রকাশিত হয়।

তাঁর অন্য প্রবন্ধগুলো হল – তেল নুন লকড়ি, রায়তের কথা, যৌবনে দাও রাজটীকা, সাহিত্যে খেলা (রোদ্যাঁ একজন ব্যক্তির নাম), আমাদের শিক্ষা, নানাচর্চা, প্রবন্ধ (১ম ও ২য় খন্ড)।

 

গল্পগ্রন্থঃ চার ইয়ারীর কথা, আহুতি, নীললোহিত ও গল্পসংগ্রহ।

কাব্যগ্রন্থঃ সনেট পঞ্চাশৎ, পদচারণ।

প্রমথ চৌধুরী বাংলা কাব্য সাহিত্যে ইতালীয় সনেটের প্রবক্তা।

 

বিখ্যাত পক্তিঃ

১.‘সুশিক্ষিত লোক মাত্রই স্বশিক্ষিত’। (বই পড়া)

 

২. ‘ভাষা মানুষের মুখ থেকে কলমের মুখে আসে,

   উল্টোটা করতে গেলে মুখে শুধু কালিই পড়ে।’ (ভাষার কথা)

 

পত্রিকাঃ ‘সবুজপত্র’ (১৯১৪) প্রমথ চৌধুরী সম্পাদিত মাসিক সাহিত্য পত্রিকা।বৈশাখ ১৩২১ বঙ্গাব্দে প্রথম প্রকাশিত হয় এবং ১৩ বছর চলে।এ পত্রিকাকে কেন্দ্র করে বাংলা গদ্যসাহিত্যে চলিতরীতি প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

এছাড়াও প্রমথ চৌধুরী ‘বিশ্বভারতীয়’ পত্রিকার সম্পাদনা করেন।