বিপ্লব

বিপ্লব

 

ফরাসি বিপ্লব

১৭৮৯ সালের ১৪ জুলাই বাস্তিল দূর্গ আক্রমণের মধ্য দিয়ে ফরাসি বিপ্লব আরম্ভ হয়। রুশো ভলতেয়ার তাদের লিখনি দ্বারা ফরাসি বিপ্লবকে অনুপ্রেরণা দিয়েছিলেন। ফরাসি বিপ্লবের স্লোগান ছিল স্বাধীনতা, সমতা ও ভ্রাতৃত্ব।১৭৯৩ সালে সহস্র দর্শকের সামনে রাজা ষোড়শ লুইকে গিলোটিনে শির:চ্ছেদ কর হয়। ‘জেকোবিন’ নামে একটি ক্লাব ছিল ফরাসি বিপ্লবের অগ্রনায়ক। ফরাসি বিপ্লবের স্লোগানটি মূলত দার্শনিক রুশোর একটি বিখ্যাত উক্তি।

“Man is born free, but is every where in chain”

নেপোলিয়নকে বলা হয় ফরাসি বিপ্লবের শিশু। নেপোলিয়ন ভূ-মধ্যসাগরের কর্সিকা দ্বীপে জন্মগ্রহণ করেন।

 

রুশ বিপ্লব

 

১৯১৭ সালে পোট্রোগ্রাডে শ্রমিকদের ধর্মঘট শুরু হলে জার দ্বিতীয় নিকোলাস তা দমনে ব্যর্থ হয়ে পদত্যাগ করতে বাধ্য হন।তখন ডুমার নির্বাচিত প্রতিনিধিগণ ‘অস্থায়ী রাশিয়ান সরকার’ গঠন করে।কিন্তু এই সরকারও দাবী পূরণে ব্যর্থ হলে ১৯১৭ সালের অক্টোবর মাসে বলশেভিক দলের নেতা লেলিন বিপ্লবের ডাক দেন।এই বিপ্লবই ইতিহাসে রুশ বিপ্লব নামে পরিচিত।এই বিপ্লব মাত্র ১০ দিন স্থায়ী ছিল। এছড়াও এই বিপ্লবকে ‘অক্টোবর বিপ্লব’ অথবা ‘বলশেভিক বিপ্লব’ নামে পরিচিত।এই বিপ্লবের পর ১৯১৮ সালে রাশিয়ার রাজধানী পোট্রোগ্রাড হতে মস্কোতে স্থানান্তর করা হয়। রুশ বিপ্লবের মহান নায়ক লেলিনের মরদেহ মস্কোর রেড স্কয়ারে অবস্থিত লেলিন যাদুঘরে সংরক্ষিত রয়েছে।

 

ভালভেট বিপ্লব

১৯৮৯ সালের ১৬ নভেম্বর – ১৯ ডিসেম্বর, সাবেক চেকোশ্লাভাকিয়ায় সংঘটিত অহিংস সমাজতন্ত্র বিরোধী রাজনৈতিক আন্দোলন ‘ভালভেট বিপ্লব’ নামে পরিচিত। এই বিপ্লবের ফলে চেকোশ্লাভাকিয়ায় একদলীয় কমুনিস্ট শাসনের অবসান হয়। এই বিপ্লবকে Gentle Revolution ও বলা হয়।

 

অরেঞ্জ বিপ্লব

২০০৪ সালে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়ম এবং ভোট কারচুপি হয়।এর ফলে ২০০৪ সালের নভেম্বর থেকে ২০০৫ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত ইউক্রেনে সংঘঠিত রাজনৈতিক আন্দোলন ‘অরেঞ্জ বিপ্লব’ নামে পরিচিতি পায়।

 

ইসলামী বিপ্লব

১৯৭৯ সালে এই বিপ্লবের মাধ্যমে ইরান ইসলামী প্রজাতন্ত্রে পরিলত হয়। ইসলামী বিপ্লবের নায়ক ছিলেন ইমাম আয়তুল্লাহ রুহুরুল্লাহ খোমেনী।এ বিপ্লবের মাধ্যমে ইরানের পাহলাবি রাজতন্ত্রের পতন হয়।ইরানের শেষ রাজা ছিলেন শাহ মোহাম্মদ রেজা পাহলাবি।

 

সবুজ বিপ্লব

 

বিংশ শতাব্দীর চল্লিশের দশক থেকে ষাট এর দশকের শেষভাগ পর্যন্ত কৃষিবিষয়ক গবেষণা, উন্নয়ন, প্রযুক্তিগত আমূল পরিবর্তন সাধিত হয়। উচ্চফলনশীল জাতের বীজের ব্যবহার, কৃত্রিম সার ও কীটনাশক প্রয়োগ প্রভৃতি কারনে কৃষি উৎপাদনে ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পায়। কৃষির ক্ষেত্রে এই অভূতপূর্ব পরিবর্তন ‘সবুজ বিপ্লব’ নামে পরিচিত।বিখ্যাত মার্কিন কৃষিবিজ্ঞানী নরম্যান বোরলাউগকে সবুজ বিপ্লবের জনক বলা হয়।

 

সাংস্কৃতিক বিপ্লব

 

১৯৬৬ সালে কমিউনিস্ট পার্টির নেতা মাও নসে তুং এর নেতৃত্বে চায়নাতে সামাজিক ও অর্থনৈতিক বৈপ্লবিক পরিবর্তনের লক্ষ্যে এই বিপ্লব সংঘঠিত হয়।