আপডেট তথ্য

 

১! বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪২ বিলিয়ন
২।বিশ্বব্যাংক কর্তৃক প্রকাশিত “মানব উন্নয়ন সূচক – ২০২০” এ বিশ্বের ১৭৪ টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১২৩ তম।
৩। বিশ্বব্যাংকের প্রকাশিত সহজে ব্যবসা করার সূচক – ২০২০ অনুযায়ী বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান কত তম?
উত্তরঃ ১৬৮তম (১৯০টি দেশের মধ্যে)।
৪।মুজিব বর্ষঃ১৭ মার্চ,২০২০ থেকে ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১ পর্যন্ত।
৫। পদ্মা সেতু রিখটার স্কেলে ৯ মাত্রার ভূমিকম্পে টিকে থাকতে পারবে!
সেতুটির ‘ফ্রিকশন পেন্ডুলাম বিয়ারিংয়ের’ সক্ষমতা হচ্ছে ১০ হাজার টন, যা বিশ্বে প্রথম।
৬। পদ্মা সেতু চালু হলে বাংলাদেশের জিডিপি ১.২ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে।
৭। পদ্মা সেতু বিশ্বে কততম?
উত্তরঃ
নদীর ওপর নির্মিত দীর্ঘতম সেতুর মধ্যে বিশ্বে পদ্মা সেতুর অবস্থান প্রথম।

ফাউন্ডেশনের গভীরতার দিক থেকেও এর অবস্থান বিশ্বে প্রথম।

দীর্ঘতম সড়ক সেতুর মধ্যে পদ্মা সেতুর অবস্থান বিশ্বে ২৫ তম।

দীর্ঘতম সড়ক-রেল সমন্বয় সেতুর মধ্যে বিশ্বে পদ্মা সেতুর অবস্থান ৬ষ্ঠ।

খরস্রোতা নদীর উপর নির্মিত দীর্ঘতম সেতুর মধ্যে বিশ্বে পদ্মা সেতুর অবস্থান প্রথম।
৮।বিশ্বের তৃতীয় দেশ হিসেবে আজ সফলভাবে চাঁদের মাটি স্পর্শ করেছে চীনের পাঠানো নভোযান ‘চ্যাং ই ফাইভ’।
৯। অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার মেয়াদ ২০২১-২০২৫।
১০। ইউনেস্কোর নির্বাহী বোর্ড সর্বসম্মতভাবে ইউনেস্কো- বাংলাদেশ ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান আন্তর্জাতিক পুরস্কার’ প্রদানের প্রস্তাব গ্রহণ করেছে।

▪️সৃজনশীল অর্থনীতিতে এ পুরস্কার প্রদান করা হবে। ▪️ইউনেস্কোর ২১০তম নির্বাহী বোর্ড এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।।

★টপিকঃ-বঙ্গবন্ধুর নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার।

★বঙ্গবন্ধুর নামে আন্তর্জাতিক পুরস্কার দেবে ইউনেস্কো।
★পুরস্কারের নামঃ- ‘ইউনেস্কো-বাংলাদেশ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইন্টারন্যাশনাল প্রাইজ ইন দি ফিল্ড অফ ক্রিয়েটিভ ইকোনমি’ ।

★পুরস্কারের জন্য প্রস্তাব করেছিলঃ- বাংলাদেশ
★পুরস্কারটি প্রবর্তনের প্রস্তাব অনুমোদন করেছেঃ- ইউনেস্কো।

★প্রথমবার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়ঃ-৯ ডিসেম্বর ২০২০
চুড়ান্ত অনুমোদন ১১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ইউনেস্কো নির্বাহী পরিষদের শরৎকালীন ২১০তম অধিবেশনে সর্বসম্মতিক্রমে ।

★অনুমোদন লাভ করেঃ- ইউনেস্কোর ২১০তম কার্যনির্বাহী বোর্ডের ভার্চ্যুয়াল সভার ১ম দফার অধিবেশনে (২-১১ ডিসেম্বর, ২০২০)।

★যে ক্ষেত্রে দেওয়া হবেঃ-সৃজনশীল অর্থনীতির ক্ষেত্রে বিশ্বব্যাপী তরুণদের উদ্যোগকে সাফল্যমণ্ডিত করার জন্য এই পুরস্কার দেওয়া হবে।

★উল্লেখ্যঃ- পুরস্কার প্রদানের ক্ষেত্রে সমাজের অনগ্রসর নারী, অভিবাসী ও প্রবাসী জনগোষ্ঠীর সৃজনশীল অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডকে প্রাধান্য দেওয়া হবে।

★পুরস্কারের অর্থমানঃ- ৫০,০০০ মার্কিন ডলার।
★পুরস্কার প্রদানঃ- প্রথমবারের মতো আগামী ২০২১ সালের নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য ইউনেস্কো এর ৪১তম সাধারণ সভা চলাকালে দেওয়া হবে।

★আগামী ছয় বছর ধরে প্রতি দুই বছর পরপর ৫০ হাজার ডলার সমমানের এই পুরস্কার দেওয়া হবে।

★আর্থিক সহযোগিতায়ঃ- স্বীকৃতিস্বরূপ সদস্য রাষ্ট্রসমূহের আর্থিক সহযোগিতায় এ পুরস্কার দিয়ে থাকে।

★যে কারনে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন করে থাকেঃ-
ইউনেস্কো শিক্ষা, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রভৃতিসহ স্বীয় অধিক্ষেত্রে বিভিন্ন অঙ্গনে অবদান রাখার আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন করে থাকে।

★প্রথম জাতিসংঘের কোনো অঙ্গ সহযোগী সংস্থা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন করলো।

★ইউনেস্কো সংস্থা কর্তৃক প্রবর্তিত সৃজনশীল অর্থনীতি ক্ষেত্রে প্রথম আন্তর্জাতিক পুরস্কারঃ- ‘ইউনেস্কো বঙ্গবন্ধু’ পুরস্কার ।

★উল্লেখ্যঃ-
★এখন পর্যন্ত ইউনেস্কো কর্তৃক এ ধরনের পুরস্কার চালু রয়েছেঃ- ইউনেস্কো অধিক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খ্যাতিমান ব্যক্তি তথা প্রতিষ্ঠানের নামে ২৩টি ইউনেস্কো আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তিত রয়েছে।

★জাতিসংঘ ২০২১ সালকে International Year of Creative Economy for Sustainable Development হিসেবে ঘোষণা করেছে।

★ইউনেস্কো ২০১৭ সালে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণ মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড আন্তর্জাতিক রেজিস্টারে অন্তর্ভুক্ত করে।
★এর আগে ১৯৯৯ সালে ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করার মাধ্যমেও ইউনেস্কো বাংলাদেশকে সম্মানিত করে।
★এছাড়াও ষাট গম্বুজ মসজিদ, পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহার এবং সুন্দরবনকে বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে এবং

★বাউল গান, জামদানি, মঙ্গল শোভাযাত্রা ও শীতল পাটি বিশ্ব অপরিমেয় ঐতিহ্য হিসেবে ঘোষণা করার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বাংলাদেশকে অন্যমাত্রায় এনে দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *